২৯শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং | ১৫ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | বিকাল ৫:২৭

অশ্র“সিক্ত নয়নে কনকের স্মরণসভা হলো কুমারখালীতে

অশ্র“সিক্ত নয়নে অকাল প্রয়াত সৈয়দ সাইমুন কনককে স্মরণ করলো কুমারখালীবাসী। অকাল প্রয়াত এই জাসদ নেতার স্মরণে গতকাল শুক্রবার কুমারখালীতে নাগরিক শোকসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। শহরের বঙ্গবন্ধু’র ম্যুরাল চত্বরে কুমারখালীবাসীর আয়োজনে এই নাগরিক শোকসভা অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতিত্ব করেন কবি ও নাট্যকার লিটন আব্বাস। নাগরিক শোক সভা ও স্মৃতিচারণমূলক আলোচনার শুরুর আগে প্রয়াত কনকের স্মৃরণে এক মিনিট দাঁড়িয়ে নিরবতা পালন করা হয়। প্রয়াত কনকের স্মতিচারণমূলক আলোচনা করেন, (খোকসা-কুমারখালী) আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার সেলিম আলতাফ জর্জ, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব কাজী আখতার হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা এটিএম আবুল মনছুর মজনু, মহিলা পরিষদের সভানেত্রী ও পাবলিক লাইব্রেরীর সাধারন সম্পাদক মমতাজ বেগম, মহিলা পরিষদের সাধারন সম্পাদক রওশন আরা নীলা,

 

 

উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারন সম্পাদক আব্দুল রফিক বিশ্বাস, ব্লাষ্ট কুষ্টিয়ার সমন্বয়ক এ্যাড. শংকর কুমার মজুমদার, শিলাইদহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সালাহউদ্দিন খান তারেক, উপজেলা জাসদের সাধারন সম্পাদক এ্যাড. জয়দেব কুমার বিশ্বাস, শিক্ষক নাসির উদ্দিন, জনকল্যাণ সংস্থার সাধারন সম্পাদক জাকারিয়া খান জেমস প্রমুখ। অকাল প্রয়াত সৈয়দ সাইমুন কনকের কর্মময় ও ব্যক্তিজীবনের উপর স্মৃতিচারণমূলক আলোচনাকালে আলোচকগণ বলেন, কনক তাঁর আচরণ দিয়ে কুমারখালীর দলমত নির্বিশেষে ছোট-বড় সর্বস্তরের মানুষকে মনেপ্রাণে ভালোবাসতেন।এ ছাড়াও সৈয়দ সাইমুন কনক ছিলেন সমাজসেবক। নিরবে অসহায় মানুষকে নিয়মিত সহযোগীতা করতেন। মানবিক গুণের কারণেই তিনি ছোট বড় সর্বস্তরের মানুষের প্রিয়জন হয়েছিলেন। স্মৃতিচারণ আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে প্রয়াত কনকের মাগফেরাত কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। গত ২৫ জানুয়ারী ভারতের দার্জিলিং জেলার ডুয়ার্সের জঙ্গলে বন্যহাতির আক্রমনে নিহত হন সৈয়দ সাইমুন কনক।