২৯শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং | ১৫ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | সন্ধ্যা ৬:১৮

কুমারখালীতে জঙ্গিবাদ সন্ত্রাস ও মাদক বিরোধী মহাসমাবেশ ও সংস্কৃতি অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হলো আজ শনিবার

মাদকের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলনে রূপ নিয়েছে– ব্যারিষ্টার সেলিম আলতাফ জর্জ।

মাদকের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলনে রূপ নিয়েছে। বঙ্গবন্ধু বাংলার কোন মাদকসেবী বা মাদক বিক্রেতা ঠাঁই হবে না।বাংলাদেশের প্রতিটা পেশাজীবী মানুষের সঙ্গে নিয়ে মাদককে সমূলে নির্মূল করা হবে। কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না মাদক বিক্রেতা মাদকসেবী এবং মাদক কে যারা আশ্রয় দেয় এমন কি প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিদের কেউ ছাড় দেওয়া হবে না। মাদকের আশ্রয়দাতা দের সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে। শনিবার বিকালে জঙ্গিবাদ সন্ত্রাস ও মাদক বিরোধী মহা সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় কুষ্টিয়া -৪ আসনের সাংসদ ব্যারিষ্টার সেলিম আলতাফ জর্জ এভাবেই বলছিলেন।
কুমারখালী উপজেলায় পৌর বাস টার্মিনালে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস ও মাদক বিরোধী মহাসমাবেশ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শনিবার বিকাল তিনটার সময় অনুষ্ঠিত হয়। কুমারখালী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া -৪ আসনের সাংসদ ব্যারিষ্টার সেলিম আলতাফ জর্জ।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ডি ডি এল জি মিনাল কান্তি দে, কুৃষ্টিয়া পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত পিপিএম (বার), কুমারখালী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল মান্নান খান, কুৃষ্টিয়া অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কুৃষ্টিয়া সার্কেল) নূরানী ফেরদৌস দিশা পিপিএম সেবা, কুমারখালী পৌরসভা মেয়র মোঃ সামছুজ্জামান অরুন, কুমারখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীবুল ইসলাম খান।
সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ ও মাদক বিরোধী সমাবেশে প্রতি তাই মাদককে সমূলে নির্মূল করার জন্য একমত পোষণ করেন। বর্তমান সরকারের যুগান্তকারী পদক্ষেপ হিসাবে মাদককে সামলে কুমারখালী থেকে নির্মূল করা হবে বলে তারা সকলকে হাত তুলে ওয়াদা করান।
অনুষ্ঠানে উপজেলার সকল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন সদস্য বৃন্দ, সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি শিক্ষক বৃন্দ, বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধি বৃন্দ, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি বৃন্দ, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিক বৃন্দ সহ সাধারণ জনগণ উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা সভার পর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হচ্ছে।