১৬ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং | ৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ভোর ৫:২১

সম্পর্ক গড়ার আগে খুঁজুন ৪ প্রশ্নের উত্তর

নিউজ ডেস্কঃ কারো আঙুলে রিং পড়ানো বা বিয়ে করার মাধ্যমে একসঙ্গে বসবাস বা স্রেফ ভালোবাসা আরো ঘনিষ্ট করা- যেভাবেই আপনি সম্পর্কের দিকে এগিয়ে যান না কেন, চূড়ান্ত সম্পর্কের পদক্ষেপ নেয়াটা কিন্তু একই সঙ্গে উত্তেজনাপূর্ণ এবং ভীতিকর।

 

ডেটিং প্রশিক্ষক এবং ‘ব্রেকথ্রো’ নামক একটি ডেটিং প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা শিরা টেইসম্যান সম্প্রতি খ্যাতনামা নিউজ পোর্টাল ইনসাইডারে এ প্রসঙ্গে কথা বলেন। তিনি চূড়ান্ত সম্পর্কে জড়ানোর আগে নিজের মনকে ৪টি প্রশ্নের উত্তর খোঁজার পরামর্শ দেন।

সত্যিকার অর্থেই কোনো সম্পর্ক পরবর্তী ধাপে নেওয়ার আগে যে চারটি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন আপনার বিবেচনায় নেয়া উচিত তা হলো:

আপনি তার সঙ্গে যখন সময় কাটান তখন কেমন অনুভব করেন?

 

আত্মবিশ্বাসী এবং আত্মপ্রত্যয়ী হতে আপনার সঙ্গীর ওপর আপনার নির্ভর করা উচিত নয়। কিন্তু আপনি যদি এটি অনুভব করার মাধ্যমে সম্পর্কটি তৈরি করেন যে, তার সঙ্গ আপনাকে আত্মবিশ্বাসী এবং আত্মপ্রত্যয়ী হতে সাহায্য করছে তবে এই প্রশ্নের উত্তর আপনাকে মূল্যায়ন করতে সাহায্য করবে যে, আপনার সঙ্গী আপনার অনুভূতির উপরে কতটা প্রভাব ফেলে।

 

শিরা বলেন, ‘আপনার সঙ্গীর আপনার সঙ্গে সম্মান ও সহমর্মীতার সঙ্গে আচরণ করা উচিত, কিন্তু শেষ পর্যন্ত আপনি ছাড়া কেউই আপনার মূল্য দিতে পারবে না। সুতরাং আগে নিজেই নিজের মূল্যায়ন করুন।’

দূরে থাকলে আপনি কি তাকে মিস করেন?

 

কারো সঙ্গ মিস করতে আপনাকে কখনো সখনো তার কাছ থেকে দূরে থাকতে হবে। যদি আপনি মনে করেন যে, খুব বেশি সময় আপনারা একসঙ্গে ব্যয় করছেন সেক্ষেত্রে নতুন গণ্ডি সেট করার বিষয়ে আপনার সঙ্গীর সঙ্গে কথা বলতে পারেন।

 

শিরা বলেন, ‘আপনি যদি আপনার সঙ্গীর সঙ্গে ২৪/৭ সময়ই একসঙ্গে  কাটান তাহলে কোনোভাবেই আপনি এই প্রশ্নের উত্তর দিতে সক্ষম হবেন না। এজন্য নিজেদের মধ্যে দূরত্ব তৈরি করতে হবে। আর শুধুমাত্র তখনই আপনি বুঝতে পারবেন যে, আপনি আপনার সঙ্গীকে মিস করেন কিনা।’

 

আপনাদের সম্পর্কের মাঝে কি ক্ষমতার ভারসাম্য রয়েছে?

শিরা বলেন, সব সম্পর্কই ক্ষমতার একটি ধ্রুবক আপস। সব সিদ্ধান্তই যে আপনার পছন্দসই হবে বা সব সিদ্ধান্তেই যে আপনার পছন্দের প্রতিফলন ঘটবে তা কিন্তু নয়। আপনি সর্বদা সব বিষয়ে একমত হবেন না এটাই স্বাভাবিক, কিন্তু যে কোনো বিষয়ে আপনার শোনার এবং সম্মান প্রদর্শন করার মানসিকতা থাকতে হবে।

 

সে কি আপনার মধ্য থেকে আপনার সেরাটা বের করে আনে?

আপনার লক্ষ্য এবং আপনার কাছে থাকা তার উপহারগুলো নিয়ে ভাবুন যা আপনাকে তার কাছে পৌঁছতে সাহায্যে করবে। আপনার সঙ্গী কি কথা এবং কাজের মাধ্যমে আপনাকে সাহায্য করে, যেন আপনি নিজের সেরাটা দিতে পারেন? এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজে পেতে সে মুহূর্তগুলো সম্পর্কে চিন্তা করুন যখন আপনার কাছে অনুভূত হয়েছিল আপনি সবচেয়ে দরকারী, মূল্যবান এবং অনেক প্রশংসা পেয়েছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.