১৭ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং | ৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | সকাল ৭:০১

জুম‘আর ফজিলত ও জাহান্নাম থেকে মুক্তির দোয়া

হুমায়ুন কবিরঃ হযরত ইয়াযীদ ইবনে আবি মারয়াম(রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, আমি একদিন পায়ে হেঁটে জুম’আর জন্য যাচ্ছিলাম। এমন সময় আমার সাথে আবায়া ইবনে রিফায়া (রাঃ) এর সাথে সাক্ষাৎ হয়। তিনি বললেন, সুসংবাদ গ্রহণ কর! তোমার এই পদচারণা আল্লাহর পথেই।আমি আবু আবস (রাঃ) কে বলতে শুনেছি, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, যে ব্যক্তির পদদ্বয় আল্লাহর পথে ধূলিময় হলো, তার পদদ্বয় জাহান্নামের জন্য হারাম করা হলো। { জামে তিরমিযি,হাদিস নং-১৬৩৮, সহীহ বুখারী, হাদিস নং-৯০৭}

 

রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেন, জুম‘আতে তিন ধরনের লোক আসে। (ক) যে ব্যক্তি অনর্থক আসে, সে তাই পায় (খ) যে ব্যক্তি আল্লাহর কাছে কিছু প্রার্থনার জন্য আসে। আল্লাহ চাইলে তাকে দেন, অথবা না দেন (গ) যে ব্যক্তি নীরবে আসে এবং কারু ঘাড় মটকায় না ও কষ্ট দেয় না, তার জন্য এই জু‘মআ তার পরবর্তী জু‘মআ এমনকি তার পরের তিনদিনের (সগীরা) গোনাহ সমূহের কাফফারা হয়ে থাকে। এ কারণেই আল্লাহ বলেছেন, ˜যে ব্যক্তি একটি নেকীর কাজ করে, তার জন্য দশগুণ প্রতিদান রয়েছে (আনআম ৬/১৬০)। আবুদাঊদ, মিশকাত হা/১৩৯৬, অনুচ্ছেদ-৪৪।

 

জু`মআর দিনের প্রয়োজনীয় কিছু আমলঃ

জুমু’আর এই পবিত্র দিনে আসুন আমরা সবাই আল্লাহ্ তা’আলার কাছে রাসূল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) শেখানো দোয়া পাঠের মাধ্যমে জাহান্নাম থেকে মুক্তি ও “জান্নাতুল ফিরদাউস” লাভের জন্য দোয়া করি।

 

“আল্লা-হুম্মা ইন্নী আউযুবিকা মিন্ ‘আযা-বি জাহান্নাম”
অর্থঃ হে আল্লাহ্ ! আমি তোমার নিকট জাহান্নামের শাস্তি হতে মুক্তি চাই।[বুখারী]

 

“আল্লা-হুম্মা ইন্নী আস্আলুকা জান্নাতাল ফিরদাউস”
অর্থঃ হে আল্লাহ্ ! আমি তোমার নিকট “জান্নাতুল ফিরদাউস” প্রার্থনা করছি। [বুখারী, মুসলিম]

Leave a Reply

Your email address will not be published.