১৭ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং | ৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | সকাল ৬:০৮

২১ বছর আগে শুক্রবার এই দিনে আলী আজম নিহত হন

দিপু মালিকঃ  আলী আজম । কুমারখালী পৌরসভার কমিশনার। কৃতি খেলোয়াড় হিসেবে বেশ সুনাম ছিল কুমারখালীর ক্রীড়াঙ্গনে এছাড়াও সাঙস্কৃতি অঙ্গনেরও তার পদচারনা ছিল। আর সর্বপরি তিনি ছিলেন ঐতিহ্যবাহী কুমারখালী পৌরসভার কমিশনার। কমিশনার থাকাকালীন সময়ে কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ছোট বোন সূবর্ণার ভর্তি পরীক্ষা দেওয়াতে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে যান ১৯৯৫ সালের ২৮ এপ্রিল শুক্রবার সকালে।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের দুপক্ষের সংঘষের মাঝখানে পরে চেহারায় বড় বড় চুল -দাড়ির কারণে জামায়াত শিবিরের সন্ত্রাসীরা তাকে ক্রিচ দিয়ে হত্যা করে। যার বিচার আজও হয়নি। একজন নিরপরাধ মানুষ খুন হয়ে গেলো ২১ বছর পার হয়ে গেলো তার কোন সুরাহা হয়নি। আলী আজমের দুইকন্যা টুকটুকি ও বাঁধন তখন শিশু। মায়ের কোল জুড়ে থাকতো। তখন বাবার মৃত্যু ও স্মৃতি নিয়ে তেমন কোন জানা তাদের ছিলনা। আজ ওরা বড় হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা করে। বড় হয়ে বাবাকে খুঁজে ফেরে। বাবা সম্পর্কে মানুষের কাছে শুনে তাদের মন প্রাণ জুড়ে গেলেও একধরনের শূন্যতা সবসময় অনুভব করে। বাবার আদর তারা ঠিকমত পায়নি বললেই চলে।

যদিও তাদের পরিবারে তিন চাচা  আবু দাউদ, কামরুজ্জামান আইয়ুব ও ওমর তাদেরকে ঠিকঠাক আগলে রেখেছে।  তাদেরকে কোলেপিঠে বাবার আদারে মানুষ করেছে। কিন্তু বাবার শূন্যতা কিম্বা শূন্যস্থান পূরণ হওয়ার নয়। যারা বাবা হারিয়েছে তারাই কেবল বুঝতে পারে এ শূন্যতার জ্বালা।
আজ এতবছর বাদে আলী আজমের স্মৃতি তর্পণে তার বাড়ীতে বাদ জুমআ’র সময় তাঁর স্মরণে মসজিদে মসজিদে দোয়া মাহফিল হয়েছে। আলী আজমের বন্ধুবান্ধব, আত্মীয়স্বজন, শুভাকাঙ্খীদের উপস্থিতি বলে দেয়ে তিনি কত জনপ্রিয় ব্যক্তি ছিলেন। এত বছর পরে প্রশ্ন ঘুরে ফিরে আসে আলী আজমের হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হবে কিনা। দোয়া মাহফিলে মরহুম আলী আজমের রুহের মাগফেরাত কামনা করে তার পরিবার আগত উপস্থিতিদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.