২০শে জুন, ২০১৮ ইং | ৭ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ১২:৫৯

জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন ফি কমল, দেখে নিন মূল্য তালিকা

নিউজ ডেস্কঃ বাংলাদেশের নাগরিকদের জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনের ফি ৭৫ শতাংশ পর্যন্ত কমিয়েছে সরকার।

জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন বিধিমালা অনুযায়ী জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন ফি পুনঃনির্ধারণ করে সোমবার আদেশ জারি করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ।
বাংলাদেশে অবস্থানরত নাগরিক ছাড়াও বিদেশে বসবাসকারী বাংলাদেশিরাও জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন করতে পারবেন। প্রবাসীদের এই নিবন্ধন করতে হবে সংশ্লিষ্ট দূতাবাসের মাধ্যমে।

জন্ম বা মৃত্যুর ৪৫ দিন পর্যন্ত কোনো ব্যক্তির জন্ম বা মৃত্যুর নিবন্ধন দেশে ও বিদেশে কোনো প্রকার ফি ছাড়াই করা যাবে আগের মতই।

 

৪৫ দিন পর থেকে পাঁচ বছর পর্যন্ত জন্ম বা মৃত্যুর নিবন্ধন ফি দেশে ২৫ টাকা এবং বিদেশে এক মার্কিন ডলার নির্ধারণ করা হয়েছে। আগে এই ফি ছিল দেশে ১০০ টাকা ও বিদেশে দুই মার্কিন ডলার।

জন্ম বা মৃত্যুর পাঁচ বছর পর নিবন্ধন করলে দেশে ৫০ টাকা ও বিদেশে এক মার্কিন ডলার গুণতে হবে। আগে এই ফি ছিল দেশে ২০০ টাকা ও বিদেশে চার মার্কিন ডলার।

 

জন্ম তারিখ সংশোধনের জন্যও নতুন করে আবেদন ফি নির্ধারণ করা হয়েছে। এ জন্য দেশে দিতে হবে ১০০ টাকা; আর বিদেশে দুই মার্কিন ডলার। আগে শুধু তথ্য সংশোধনের জন্য দেশে ৫০০ টাকা এবং বিদেশে ১০ মার্কিন ডলার ফি দিতে হত।

 

জন্ম বা মৃত্যুর ১০ বছর পর কোনো ব্যক্তির জন্ম বা মৃত্যু নিবন্ধনের জন্য আগে দেশে ৫০০ টাকা এবং বিদেশে ১০ মার্কিন ডলার ফি দিতে হত। সংশোধিত বিধিমালায় জন্ম বা মৃত্যুর ১০ বছর পরে নিবন্ধনের কোনো সুযোগ রাখা হয়নি।

 

জন্ম তারিখ ছাড়া নাম, বাবার নাম, মায়েল নাম, ঠিকানাসহ অন্যান্য তথ্য সংশোধনের জন্য আবেদন ফি ঠিক করা হয়েছে দেশে ৫০ টাকা এবং বিদেশে এক মার্কিন ডলার। আগে যে কোনো তথ্য সংশোধনের ফি ছিল দেশে ৫০০ টাকা এবং বিদেশে ১০ মার্কিন ডলার।

 

বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষায় মূল সনদ বা তথ্য সংশোধনের পর সনদের কপি এখন থেকে বিনামূল্যে সরবরাহ করা হবে। আগে বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষায় মূল সনদ বা তথ্য সংশোধনের পর সনদের কপি পেতে দেশে ১০০ টাকা এবং বিদেশে দুই মার্কিন ডলার দিতে হত।

 

বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষায় সনদের নকল সরবরাহ ফি দেশে ৫০ টাকা এবং বিদেশে এক ডলার নির্ধারণ করা হয়েছে। আগে এই ফি ছিল দেশে ১০০ টাকা এবং বিদেশে দুই ডলার।

 

জন্ম নিবন্ধন সনদে ব্যক্তির নাম, লিঙ্গ, জন্ম তারিখ, জন্মস্থান, বাবা-মায়ের নাম, জাতীয়তা এবং স্থায়ী ঠিকানা সম্পর্কিত তথ্য থাকে।

পাসপোর্ট, বিয়ে নিবন্ধন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি, চাকরিতে নিয়োগ, ড্রাইভিং লাইসেন্স, ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্তি, ব্যাংক হিসাব খোলা, আমদানি ও রপ্তানির লাইসেন্স, গ্যাস, পানি, টেলিফোন ও বিদ্যুৎ সংযোগ, ট্যাক্স আইডেন্টিফিকেশন নম্বর প্রাপ্তি, বাড়ির নকশা অনুমোদন, গাড়ি রেজিস্ট্রেশন, ট্রেড লাইসেন্স এবং জাতীয় পরিচয়পত্র পেতে ওই সনদের প্রয়োজন হয়।

 

মৃত্যু নিবন্ধন সনদে মৃত ব্যক্তির নাম, মৃত্যুর তারিখ, মৃত্যুর স্থান, লিঙ্গ, বাবা-মা বা স্বামী-স্ত্রীর নাম থাকে। মৃত ব্যক্তির সম্পত্তি বণ্টন, পারিবারিক পেনশন প্রাপ্তির মত কাজে ওই সনদের প্রয়োজন হয়।

 

সবশেষ ২০১৭ সালের ২ মার্চ জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনের ফি নির্ধারণ করেছিল সরকার। সব ধরনের নিবন্ধন ফি এবার অর্ধেক কমিয়ে নিবন্ধন ফি পুনঃনির্ধারণ করা হল।