২১শে জুলাই, ২০১৮ ইং | ৬ই শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ১১:২৩

কুমারখালী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কাজী শেলীর বই বিতরণ

আলোকিত মানুষ চাই এই স্লোগানকে সামনে রেখে কুষ্টিয়ার কুমারখালীর সমাজকর্মকার মমতাময়ী মা কাজী শেলীর উদ্যোগে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে বই বিতরণ করলেন।
রবিবার সন্ধ্যায় ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান কুমারখালী পাবলিক লাইব্রেরী মিলনায়তনে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানে শিক্ষিত ও গর্বিত জাতি করার উদ্দেশ্য ও প্রত্যয় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে তিনি বই বিতরণ করলেন।
 
বিতরনি প্রতিষ্ঠান গুলোর মধ্যে এম এন পাইলট স্কুল,কুমারখালী পাইলট বালিকা বিদ্যালয়, অভেদানন্দ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কয়া গ্রামের নাসির মাস্টারের কুলসুম নেছা পাঠাগার, কুমারখালীর বর্ণমালা সংস্থা, সদকি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,কুমারখালী পাবলিক লাইব্রেরী সহ মোট ৮ টি প্রতিষ্ঠানে মেধাবিকাশে আলোকিত মানুষ বানাতে বই বিতরন করেন।
 
এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন এম এন পাইলট স্কুলের সাবেক প্রধান শিক্ষক মোঃ শহিদুল ইসলাম, কুমারখালী মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ সমিতির সভাপতি আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা এ টি এম আবুল মনছুর মজনু ,নাগরিক পরিষদের আহ্বায়ক হোসেন, সদকী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল মজিদ, বাংলাদেশ-ভারত সম্প্রীতি পরিষদের সাধারণ সম্পাদক বাবু নিতাই কুমার কুন্ডু ও এডভোকেট জয়দেব কুমার,পাবলিক লাইব্রেরী সাধারণ সম্পাদক মমতাজ বেগম,কাজী শেলীর স্বামী সাজ্জাদ আলম, প্রভাষক ,কাইসার রেজা পাশা,কবি সোহেল আমিন বাবু,মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ,সাংবাদিকবৃন্দ,মিডিয়া জোনের সদস্যবৃন্দ প্রমুখ।
বই বিতরণ অনুষ্ঠানের শুরুতেই পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন কুমারখালীর গর্ভ মমতাময়ী মা কাজী শেলীর মেয়ে মেহজাবিন আলম।
সমগ্র অনুষ্ঠানে কুমারখালীর বিভিন্ন সুধী ও আলোকিত মানুষ, গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব, বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।এ ছারাও আহত সাংবাদিক এম এ ওহাব সহ বেশ কয়েক জনের চিকিৎসার আর্থিক সহযোগিতা করেন কাজী শেলি,ভিন্ন শিপন সহ কুমারখালী বাসী পক্ষ থেকে ফুলের শুভেচ্ছা প্রাদান করা হয়।
এই অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন রাসেল মোশাররফ চৌধুরী ।